সফলতার গল্প: মাছ চাষে ৭ বন্ধুর অভাবনীয় সাফল্য!

মাছ চাষে সাফল্য তানজিম ফিসারিজ

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের মহারাজপুর গ্রামের জাকির হোসেন ও তার ৬ বন্ধু নিষ্ঠা, সততা এবং পরিশ্রমের ফলে অল্প সময়ের মধ্যে মাছ চাষ করে অর্জন করেছেন অভাবনীয় সাফল্য। তারা অর্জন করেছেন উপজেলার সেরা মৎস চাষী পুরষ্কার।

শিক্ষিত হয়েও তারা চাকরির না খুঁজে নিজেরা স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য করেন মাছ চাষ। মাত্র দুই লাখ টাকা নিয়ে তিনটি পুকুর লিজ নিয়ে শুরু করেন মাছের চাষ। এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি তাদের।

তার সাত বন্ধু হলেন রিয়াজুল ইসলাম, বুলবুল, ইসমাইল হোসেন, জাকির হোসেন, ইব্রাহিম খলিল। এখন বর্তমানে আমাদের মোট ১০০ বিঘার ১৫টি পুকুর রয়েছে উপজেলার বিভিন্ন জায়গায়। বিভিন্ন জাতের মাছের পোনা হ্যাচারি থেকে সংগ্রহ করে পুকুরে করে বড় করেন তারা।

তাদের এসব মাছের পুকুরে প্রতিদিন নিয়মিত খাবার দিতে হয়। প্রতি বছর মার্চ মাসের শুরুতে পুকুরে মাছের পোনা ছেড়ে দেয়ার পর ১০ মাস ধরে মাছগুলো খাবার ও প্রয়োজনীয় ওষুধ দিয়ে বড় করে ডিসেম্বর মাস থেকে দেশের বিভিন্ন বাজারে বিক্রি হয়।

তারা জানান, মাছ চাষ করে একদিকে তারা যেমন নিজেরা স্বাবলম্বী হয়েছে, অপরদিকে তাদের এই সফলতা জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

উপজেলা মৎস কর্মকর্তা আলমগীর কবির বলেন, প্রতি বছর তাদের মাছের পুকুর থেকে হেক্টরে ১২.৯ টন মাছ উৎপাদন হয়। মাছ চাষের সফলতার জন্য তারা বিভিন্ন পুরষ্কার জিতেছেন। আমরা তাদের সব ধরণের সহযোগিতা করে যাচ্ছি।

You May Also Like