শিক্ষণীয় গল্প: ভালো কপাল মন্দ কপাল

good luck bad luck

চীনের এক গ্রামে ছিলেন এক বুড়ো কৃষক। তার ছিল এক চাষের ঘোড়া। একদিন সেই ঘোড়াটি পালিয়ে গেল পাহাড়ি এলাকার গভীরে। দুদর্শা দেখে তার প্রতিবেশী সান্ত্বনা দিয়ে বললেন, ‘কী আর করবে। তোমার কপাল মন্দ!’

কৃষক জবাব দিলেন, ‘কপাল মন্দ না ভালো, তা কেই বা জানে!’

এক সপ্তাহ পর ঘোড়াটি ফিরে এলো। ওর সঙ্গে এলো একপাল বুনো ঘোড়া। বুড়ো কৃষককে এবার অভিবাদন জানিয়ে প্রতিবেশী বললেন, ‘তোমার কপাল আসলেই ভালো।’

কৃষক এবারও জবাব দিলেন, ‘আমার কপাল মন্দ না ভালো, তা কেইবা জানে!’

তারপর তার ছেলে বুনো ঘোড়াগুলোর একটিকে বশে আনার চেষ্টা করতে গেল। কিন্তু ঘোড়ার পিঠ থেকে পড়ে পা ভাঙল তার। এতে মন্দ কপালের কথাই ভাবল সবাই। কেবল বুড়ো কৃষকেরই ভাবনা ছিল, ‘কপাল মন্দ না ভালো, তা কেই বা জানে!’

এর কয়েক সপ্তাহ পর সেনাবাহিনী এলো গ্রামে। যুদ্ধে যেতে সবল যুবকদের ধরে নিয়ে গেল। কেবল ছেড়ে দিল বুড়ো কৃষকের পা ভাঙা ছেলেটিকে।

শিক্ষা:
ভালো গুণ যেমন চুরি করা যায় না তেমনি কপালের লিখনও খণ্ডানো যায় না। কার কপালে কী লেখা আছে তা কেউ আগাম বলতেও পারে না।

Facebook Comment

You May Also Like