আর্নেস্ট হেমিংওয়ে’র ছয় শব্দের গল্প!

আর্নেস্ট হেমিংওয়ে'র ছয় শব্দের গল্প!
বন্ধুদের সঙ্গে একবার রেস্তোরাঁয় বসে খাচ্ছিলেন আর্নেস্ট হেমিংওয়ে। সে সময় তিনি বন্ধুদের সঙ্গে ১০ ডলারের বাজি ধরেন যে ছয় শব্দে তিনি একটা আস্ত গল্প লিখে ফেলতে পারবেন। এরপর ন্যাপকিনে লিখে ফেলেন তার গল্পটি।

গল্পটি হচ্ছে– ”For sale. Baby shoes. Never worn”

শিশুর একজোড়া জুতো বিক্রি করা হবে, যা একবারও পরেনি শিশুটি ।

একজন মায়ের অনুভূতি নিয়ে লেখা এ গল্পটি মাত্র ৬টি শব্দ দিয়ে লেখা হয়েছিল। বাচ্চার জন্য জুতো কেনা হয়েছিল, কিন্তু সেই বাচ্চাটা পৃথিবীর আলোই দেখেনি, মায়ের গর্ভেই শিশুটির মৃতু হয়” ৬ শব্দে গর্ভে মারা যাওয়া শিশুর জন্য মায়ের অনুভূতি! কী ভীষণ বেদনাদায়ক।

সাহিত্য সমালোচকেরা এটিকে পৃথিবীর সবচেয়ে ছোটগল্প হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে থাকেন !!

দারুণ অনুপ্রেরণাদায়ী নোবেল বিজয়ী এ আমেরিকান লেখক তার ‘ দ্য ওল্ডম্যান এন্ড দ্য সি ‘ উপন্যাসে একটি সংলাপ যেটি আজও হেরে যাওয়া মানুষকে সমানভাবে জাগিয়ে তোলে।

“A man can be destroyed but not defeated”

বিটোফেন বধির হয়ায় সেই কষ্ট, সে কষ্ট বয়ে বেরিয়েছেন বিটোফেন তাঁর তৈরি করা সুরে। তেমনি প্রত্যেক লেখকের জীবনেই আছে গভীর ক্ষত।

বিশ শতকের মার্কিন সাহিত্যে অন্যতম প্রভাববিস্তারকারী লেখক আর্নেস্ট হেমিংওয়ে তাঁর বর্ণাঢ্য কিন্তু ঝঞ্ঝাবিক্ষুব্ধ জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটান আত্মহননের মাধ্যমে। মুখে বন্দুকের নল ঢুকিয়ে ট্রিগার টিপে রোগক্লিষ্ট জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটাতে তিনি কেন তাঁর জন্মস্থান ইলিনয়ের ওক পার্ক কিংবা পরবর্তী জীবনে বসবাসের জন্য নির্বাচিত মায়ামির কি-ওয়েস্ট, প্রিয় দেশ কিউবার পরিবর্তে জেম স্টেট হিসেবে খ্যাত আইডাহোকে বেছে নিলেন, তা এক রহস্য বটে।

ব্যর্থ হেমিংওয়ে নয়, ব্যর্থ এই পৃথিবী। কারণ হেমিংওদের মত মানুষকে ধারণ করার ক্ষমতা এই জগত এখনো অর্জন করতে পারেনি।

আর্নেস্ট হেমিংওয়ে ১৮৯৯ সালের আজকের দিনে (২১ জুলাই) আমেরিকার ইলিনয়ের ওক পার্কে জন্মগ্রহণ করেন।

হেমিংওয়ে,চে, ক্যাস্টো পৃথিবী বদলে দেয়া তিন স্বাপ্নিক অবসরে মাছ শিকারে।

Fidel Castro and Che Guevara in the first “Ernest Hemingway Marlin Fishing Tournament,” May 14, 1960.

You May Also Like