খোকন গেছে মাছ ধরতে - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

খোকন গেছে মাছ ধরতে – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

সেদিন কর্নেল নীলাদ্রি সরকার আমাকে দেখেই বলে উঠলেন–জয়ন্ত কখনওকি ছিপে মাছ ধরেছ? সবে ওঁর ইলিয়ট রোডের তিনতলার অ্যাপার্টমেন্টের ড্রয়িংরুমের ভেতর পা বাড়িয়েছি, বেমক্কা এই প্রশ্ন। অবশ্য ওঁর নানারকম অদ্ভুত-অদ্ভুত বাতিক…

কালো পাথর - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

কালো পাথর – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

প্রেতাত্মা নিয়ে আসর বসানো অরুণেন্দুর হবি। এই আসরে মৃত মানুষের আত্মার আবির্ভাব হয় কোনো জীবিত মানুষের মাধ্যমে, যাকে বলা হয় মিডিয়াম। অরুণেন্দু নিজে কিন্তু মিডিয়াম নয়, নিছক উদ্যোক্তা। মিডিয়াম সবাই…

ভৌতিক বাদুড় বৃত্তান্ত - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ভৌতিক বাদুড় বৃত্তান্ত – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

গুণধর বলল,-একটা কথা বলি দাদাবাবু! বাদুড়কে রাতবিরেতে কক্ষনো বাদুড় বলবেন না। বলবেন রাতপাখি। অবাক হয়ে বললুম,–কেন বলল তো গুণধর? গুণধর হাসল।–এ তো সোজা কথা দাদাবাবু। কানাকে কানা, খোঁড়াকে খোঁড়া বললে…

শ্যামখুড়োর কুটির - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

শ্যামখুড়োর কুটির – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

সেই যারা বাংলা মুল্লুকের পাড়াগাঁয়ে রাতবিরেতের অন্ধকারে নিরিবিলি জায়গায় আলো জ্বেলে কীসব খুঁজে বেড়ায়, এই মার্কিন মুল্লুকেও এসেও তাদের দেখা পেয়ে যাব ভাবতেও পারিনি। তফাতটা শুধু দেখলুম ভাষার। সেই একইরকম…

হরির হোটেল - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

হরির হোটেল – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

স্টেশনে ট্রেন থামতে-না-থামতেই যাত্রীদের মধ্যে হুলস্থুল বেধে গিয়েছিল। ভিড়ে ঠাসা কামরা। পিছন থেকে প্রচণ্ড চাপ আর তো টের পাচ্ছিলুম। তারপর দেখলুম, কেউ-কেউ আমার কাঁধের ওপর দিয়ে কসরত দেখিয়ে সামনে চলে…

স্টেশনের নাম ঘুমঘুমি - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

স্টেশনের নাম ঘুমঘুমি – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ভুল করে অন্য কোথাও নেমে পড়েছি নাকি? ট্রেন চলে গেলে কিছুক্ষণ ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে চারদিক দেখতে থাকলাম। মানুষ নেই জন নেই, গাছ নেই পালা নেই, এ কেমন জায়গা? নাঃ, ভুল…

মাছ ধরার আপদ-বিপদ - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

মাছ ধরার আপদ-বিপদ – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

কথাটা উঠেছিল খবরের কাগজের একটা বিজ্ঞাপন নিয়ে। সাঁতরাগাছিতে রেল লাইনের ধারে একটা পুকুর আছে। খুব মাছ আছে সেখানে। পুকুরের মালিক সরকারি রেল-দপ্তরের লোক। ছিপ ফেলে মাছ ধরার এমন সুযোগ নাকি…

জ্যোৎস্নারাতে আপদ-বিপদ - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

জ্যোৎস্নারাতে আপদ-বিপদ – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ছোটমামার সঙ্গে পাশের গ্রামে যাত্রা শুনতে গিয়েছিলুম। যাত্রার আসর যখন হোভাঙল তখন অনেক রাত। ফুটফুটে জ্যোৎস্না ছিল। ছোটমামা বললেন, এত রাতে আর বাস পাওয়া যাবে না। আয়, বরং হাঁটাপথে শর্টকাট…

কালো ঘোড়া - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

কালো ঘোড়া – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ব্যাপারটা নিছক স্বপ্ন, নাকি সত্যি সত্যি ঘটেছিল, বলা কঠিন। শুধু এটুকুই বলতে পারি, এ ঘটনা আমি মোটেও বানিয়ে বলছি না। যা-যা ঘটেছিল, অবিকল তাই-তাই বর্ণনা করছি। গত শরৎকালের কথা। তখন…

ঘুঘুডাঙার ব্রহ্মদৈত্য - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ঘুঘুডাঙার ব্রহ্মদৈত্য – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ভূতের স্বপ্ন তো সবাই দেখে! তাই বলে কি ভূত বিশ্বাস করতে হবে? এই হচ্ছে ভবভূতিবাবুর স্পষ্ট কথা। তিনি যৌবনে দুর্দান্ত শিকারি ছিলেন। বনে জঙ্গলে পোড়ো-বাংলোয় ঘুরেছেন। কোথায় ভূত? তার বন্ধু…

আজমগড়ের অশরীরী - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

আজমগড়ের অশরীরী – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

তখন আমি ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দের সিপাহিবিদ্রোহ নিয়ে গবেষণা করছিলুম। সেই কাজে আমাকে আজমগড়ে যেতে হয়েছিল। আজমগড় উত্তরপ্রদেশে গঙ্গার ধারে একটা ছোট্ট শহর। সেখানে একটা কেল্লার ধ্বংসাবশেষ আছে। তবে ওটা দেখবার জন্য…

চোরাবালির চোর - সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

চোরাবালির চোর – সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ

ছোটমামার মাথায় বড়-বড় চুল। চুল নয়, যেন সজারুর কাটা। রকমারি শ্যাম্পু ঘেযেও ছোটমামা তার ওই নচ্ছার চুলগুলোকে বাগ মানাতে পারছিলেন না। শেষে বাবা পরামর্শ দিলেন, তার চেয়ে ন্যাড়া হচ্ছ না…