বিবাহ-মঙ্গল - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

বিবাহ-মঙ্গল – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

বিয়ের ব্যাপারটা আগের চেয়ে অনেক ছিমছাম হয়েছে। কোনও সন্দেহ নেই। বরপক্ষের স্টিম রোলার আর আগের মতো কনেপক্ষের ঘাড়ের ওপর এসে পড়ে না। চক্ষুলজ্জা এসেছে। শিক্ষা দীক্ষা বাড়ার ফল। লোকসংখ্যা বেড়েছে।…

জুতোচোর হইতে সাবধান - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

বিস্কুট – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

রসিক বললে—দেখিস বাংলায় আচার্য প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের পরেই রসিক রায়ের নাম সোনার অক্ষরে লেখা থাকবে। রঞ্জন এইমাত্র হাত বাড়িয়ে সিগারেটের প্যাকেট থেকে একটা সিগারেট মুখে লাগিয়ে অগ্নিসংযোগ করেছে। একমুখ ধোঁয়া ছেড়ে…

জলছবি - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

জলছবি – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

আমরা তখন সকলে সবিস্ময়ে সেই উঁচু ঢিবির দিকে তাকিয়ে রইলুম। দিগন্তে তখন সূর্য অস্ত যেতে বসেছে। সারা আকাশ তামাটে লাল। সেই সূর্য্যাস্তের দিকে মুখ করে ওরা দুজনে বসে আছে। মেয়েটির…

জুতোচোর হইতে সাবধান - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

রহস্য – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

বাস এসে গেছে টার্মিনাসে। সবাই নেমে যাচ্ছেন। আমি আর আমার বন্ধু একেবারে পেছনের সিটে জায়গা পেয়েছিলুম। আমি নামার জন্যে হুড়োহুড়ি করছিলুম, আমার বন্ধু বলাই বললে, ‘চুপ করে বোস, অত হুটোপাটির…

বাঘমারি - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

বাঘমারি – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

কথা হচ্ছে, যাকে বলে গালগল্প। চার বন্ধু বসেছে আড্ডায়। চিমার ফরেস্টের ডাকবাংলোয়। চারজনে এসেছে পুজোর ছুটি কাটাতে। প্রতি বছরই এই চারজন কোথাও না কোথাও যাবেই। নদীতে, পাহাড়ে, বনে, জঙ্গলে। সব…

শেষ কথা - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

শেষ কথা – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

জমিদার বাড়ির গঙ্গার ঘাট। তেমন তো কেউ সরে না। সাবেক কালের বাঁধন আলগা হয়ে এসেছে। পইঠের কিছু কিছু হেলে গেছে। এইবার যে-কোনও দিন জোয়ারের গাঙ্গে গা ভাসিয়ে দেবে। সরকারি বাঁধন…

জুতোচোর হইতে সাবধান - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

স্বপ্নের দাম – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

অজয়ের হঠাৎ মনে হল শরীরটা তেমন ভালো লাগছে না। ম্যাজম্যাজ করছে। জ্বরজ্বর লাগছে। হাই উঠছে। মাথাটা ভার ভার। রগের পাশের শিরা দুটো টিপ টিপ করছে। অফিসে তেমন কাজ ছিল না।…

জুতোচোর হইতে সাবধান - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

অঞ্জলি – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

স্নান করে ঠাকুরঘরে ঢুকেই প্রভাত অবাক হয়ে গেল। গত পাঁচ বছরে এরকম ব্যতিক্রম তার কখনও চোখে পড়েনি। পুজোর সব আয়োজন ঠিক রয়েছে কিন্তু ফুল কোথায়? ফুলের থালা গঙ্গাজলের ঘটির ওপরে…

হাত - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

হাত – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

হু-হু করে রাস্তা ছুটে চলেছে জানালার দুপাশ দিয়ে। বেশ লাগছে। ছুটির কলকাতা। পথে তেমন। ভিড় নেই। ফাঁকা ফাঁকা। গাড়ি-ঘোড়াও কম। ট্যাক্সির বাঁ-ধারের জানলা ঘেঁষে বসেছি। বেশ জাঁকিয়ে। আরাম করে। পুরো…

রুপোর মাছ - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

রুপোর মাছ – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

অনেকেই বলে মামার বাড়িতে মানুষ হওয়া ভালো নয়। নিজের বাড়ি ছেড়ে মামার বাড়ি কেন? অনেক সময় ছেলেদের বাবা মারা গেলে বা বাবার অবস্থা খারাপ হলে মায়েরা ছেলেকে মামার বাড়ি পাঠিয়ে…

জুতোচোর হইতে সাবধান - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

সুখ-অসুখ – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

মনোরঞ্জন নাকি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েছে। পরেশই আমাকে খবরটা দিল। কী একটা কাজে সে অ্যাকাউন্টস ডিপার্টমেন্টে গিয়েছিল। ফাইল সই করাতে, নাকি বিল পাস করাতে। গিয়ে দেখে এসেছে চক্রবর্তী সাহেব চেয়ারে…

সোনার পালক - সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

সোনার পালক – সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়

আকাশ। হঠাৎ সেই আকাশ থেকে কী একটা পাক খেতে খেতে নীচের দিকে নেমে আসছে। ঠক করে বুকে এসে পড়ল। তুলে দেখল, এই এতবড় একটা সোনার পালক। ভীষণ সুন্দর! তার যে…