আব্দুল কাদের জিলানী (রহঃ) ও ডাকাত দলের শিক্ষনীয় ঘটনা

বড় পীর হযরত আব্দুল কাদের জিলানী (রহঃ) এর ছােটবেলার ঘটনা। একদা তিনি এক কাফেলার সাথে বাগদাদ গমন করছিলেন। পথিমধ্যে সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসার কারণে তারা এক জায়গায় রাত্রি যাপনের সিদ্ধান্ত নিল। রাত্রি যাপনের আয়ােজনে সকলেই ব্যস্ত। এমন সময় একদল ডাকাত এসে তাদের উপর হামলা চালিয়ে সব মালামাল লুণ্ঠন করে নিল।

ডাকাত দলের লুণ্ঠন যখন শেষ হলাে, তখন একজন ডাকাত, বালক আব্দুল কাদেরকে লক্ষ্য করে বললাে, এই ছেলে! তােমার নিকট কিছু আছে কি? বালক আব্দুল কাদের অকুণ্ঠচিত্তে জবাব দিলেন, হ্যাঁ, আছে।

জবাব শুনে ডাকাত মনে করল, ছেলেটি হয়তাে আমার সাথে ঠাট্টা করছে। কারণ তার নিকট কিছু থাকলে তাে দেখাই যেত। তাই সে আবার বললাে, তােমার নিকট কি আছে এবং তা কোথায় আছে বলাে? তিনি বললেন, আমার নিকট ৪০ টি স্বর্ণমুদ্রা আছে এবং তা আমার সাথেই আছে। ডাকাতটি অনেক খোঁজাখোঁজির পরও তার নিকট কোন স্বর্ণমুদ্রা না পেয়ে ধমকের স্বরে বললাে, তুমি কি আমার সাথে উপহাস করছাে?

উত্তরে তিনি বললেন, আমি সত্যি কথাই বলেছি। ইতিমধ্যে ডাকাত দলের সর্দার উপস্থিত হয়ে বললাে, আচ্ছা, তােমার স্বর্ণমুদ্রাগুলাে কোথায় রেখেছ, বলতাে। তিনি বললেন, আমার কোর্টের ভাজের মধ্যে মুদ্রাগুলাে সেলানাে রয়েছে।

তার কথা মতাে মুদ্রাগুলাে পেয়ে ডাকাত সর্দার বললাে, তুমি তাে বড় বােকা ছেলে! কারণ তুমি যদি আমাদেরকে এগুলাের খোঁজ না দিতে তাহলে কিছুতেই আমরা এগুলাের খোঁজ পেতাম না। একথা শুনে বালক আব্দুল কাদের বললেন, আমি বাড়ী থেকে বের হওয়ার সময় আমার আম্মা বলে দিয়েছেন যে, হে আমার প্রিয় ছেলে! সদা সত্য কথা বলবে।

কখনাে মিথ্যা কথা বলবে না। তাঁর এই উপদেশের দিকে লক্ষ্য রেখেই আমি আজ তােমাদের নিকট সত্য কথা বলেছি। সহজ সরল ছােট্ট এ কথাটি সর্দারের মনে গভীর ভাবে রেখাপাত করলাে। সে ভাবতে লাগলাে, ছােট এই ছেলেটি মায়ের কথা তিলে তিলে মেনে চলছে। অথচ আমি এই বুড়াে বয়সে উপনিত হয়েও আল্লাহর নির্দেশ অমান্য করে চুরি ডাকাতি করছি? মানুষকে কষ্ট দিচ্ছি?

না, তা হতে পারে না। একথা বলে সে বালক আব্দুল কাদেরের একটি হাত তার বুকে টেনে নিয়ে বললাে, আমি তােমার সামনে তওবা করছি এবং প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হচ্ছি যে, আজ থেকে আর কোনদিন মহান আল্লাহর নির্দেশ অমান্য করব না এবং কোনদিন ডাকাতিও করবাে না। সর্দারের এ অবস্থা দেখে অন্যান্য ডাকাতদেরও মনের অবস্থা পরিবর্তন হয়ে গেল।

তারাও তওবা করে বললাে যে, আজ থেকে আমরাও ডাকাতি করবাে না এবং কাউকে কষ্ট দিব না। অতঃপর তারা সবাই সর্দারকে লক্ষ্য করে বললাে, এতদিন যেমন অন্যায় ও খারাপ কাজে আপনি আমাদের সর্দার ছিলেন তেমনি এখন থেকে নেক ও সৎকাজের ব্যাপারেও আপনি আমাদের সর্দার থাকবেন।

সর্দার তাদের এ প্রস্তাব মেনে নিল এবং কাফেলার লােকদের থেকে লুষ্ঠিত যাবতীয় মালামাল ও টাকা-পয়সা ফেরত দিয়ে নিজেদের পথে চলে গেল।

সত্য কথা বলার কারণে এভাবেই একটি পথভ্রষ্ট ডাকাত দল হেদায়েতের নূরে নূরান্বিত হয়ে সঠিক পথের সন্ধান পেল।

প্রিয় পাঠক! আমরা কি সদা সর্বদা জীবনের সকল ক্ষেত্রে সত্য, কথা বলার সৎ সাহস দেখাতে পারি না? আল্লাহ আমাদের তৌফিক দিন। আমীন।

What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

You May Also Like