দন্তরুচি - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

দন্তরুচি – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রেমের জন্য পাগল হইয়া যাইতে বড় কাহাকেও দেখা যায় না। ইতিহাসে একটিমাত্র পাকা নজির আছে : পারস্য দেশে মজনু লয়লার জন্য দেওয়ানা হইয়া গিয়াছিল। আমি আর একটি দৃষ্টান্ত জানি; তিনি বাংলাদেশের নীরদবাবু।…

যুধিষ্ঠিরের স্বর্গ - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

যুধিষ্ঠিরের স্বর্গ – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

দশ বৎসর আগে আমি যখন কটকে বাস করিতাম তখন যুধিষ্ঠির দাস আমার ভৃত্য ছিল। কুড়ি বছরের নিকষকান্তি যুবক, পান ও গুণ্ডির রসে মুখের অভ্যন্তর ঘোর রক্তবর্ণ; মাড়ির প্রান্তে ক্ষুদ্র দাঁতগুলি তণ্ডুলকণার মতো…

সেকালিনী - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

সেকালিনী – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

হলুদপুরের কবিরাজ শ্রীহরিহর শর্মার কন্যা শৈল আমাদের কাহিনীর নায়িকা। কিন্তু আজকাল গল্পের নায়িকাদের যেসব অসমসাহসিক প্রগতিপূর্ণ কার্য করিতে দেখা যায় তাহার কিছুই সে পারিবে বলিয়া বোধ হয় না। শৈল নিতান্ত সোলিনী। হলুদপুর…

জটিল ব্যাপার - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

জটিল ব্যাপার – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

একটা জটা জুটিয়াছিল। পরচুলার ব্যবসা করি না; সখের থিয়েটার করাও অনেকদিন ছাড়িয়া দিয়াছি। তাই, আচম্বিতে যখন একটি পিঙ্গলবর্ণ জটার স্বত্বাধিকারী হইয়া পড়িলাম তখন ভাবনা হইল, এ অমূল্য নিধি লইয়া কি করিব। কিন্তু…

মনে মনে - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

মনে মনে – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

দ্বিজেনের কথা আজ অফিস থেকে বাড়ি ফিরতে বড্ড দেরি হয়ে গেল। মীনা দেরি হওয়া ভালবাসে না—তার মুখ একটু ভার হয়, চোখে গাম্ভীর্য ঘনিয়ে ওঠে। কিন্তু মুখ ফুটে তো কিছু বলবে না—কেবল ভেতরে…

তিমিঙ্গিল - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

তিমিঙ্গিল – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

তিমি মৎস্যই যে পৃথিবীর বৃহত্তম জীব, এ বিষয়ে জ্ঞানী ব্যক্তিরা একমত। আমি কিন্তু নিতান্ত অজ্ঞ হওয়া সত্ত্বেও বলিতে পারি যে, তিমিঙ্গিল নামধারী আর একটি অতি বৃহদায়তন জীব আছে যাহারা তিমি মৎস্যকে গিলিয়া…

ঘড়িদাসের গুপ্তকথা - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

মটর মাস্টারের কৃতজ্ঞতা – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

মাস তিনেক আগে বদলি হয়ে কলকাতায় এসেছি। ভাল বাসা পাইনি, তাই এখনো ফ্যামিলি আনিনি। কিন্তু মোটর গাড়িটা আনতে হয়েছে। আমার যে ধরনের কাজ তাতে মোটর না হলে চলে না। কলকাতায় এসেই কিন্তু…

ঘড়িদাসের গুপ্তকথা - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

কানু কহে রাই – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

ছোটনাগপুরের একটি বড় শহর হইতে যে পাকা রাস্তাটি ষাট মাইল দূরের অন্য একটি বড় শহরে গিয়াছে সেই রাস্তা দিয়া একটি মোটর গাড়ি চলিয়াছে। শীতান্তের অপরাহ্ন, বেলা আন্দাজ তিনটা। রাস্তার দুপাশে অসমতল জঙ্গল,…

বীর্যশুল্কা - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

বীর্যশুল্কা – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

রাজকুমারী সুমিত্রার আর কিছুতেই বর পছন্দ হয় না। দেশ-দেশান্তর থেকে রাজারা লিপি পাঠান–রাজকন্যার পাণিপ্রার্থনা জানিয়ে কিন্তু লিপি গ্রাহ্য হয় না। রাজদূত নিরাশ হয়ে ফিরে যায়। সুন্দরকান্তি রাজপুত্রেরা আসেন রাজকন্যার প্রাসাদের সুমুখে ঘোড়ায়…

ঘড়িদাসের গুপ্তকথা - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

অমরবৃন্দ – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

গৃহিণী থিয়েটার দেখিতে গিয়াছিলেন। কাজেই শুইতে যাইবার বিশেষ তাড়া ছিল না। রাত্রি দশটা নাগাদ আহারাদি শেষ করিয়া লাইব্রেরি-ঘরে আসিয়া বসিলাম। ভৃত্য তামাক দিয়া গেল। নৈশ-প্রদীপের তৈল পুড়াইয়া কাজ করা আমার অভ্যাস নাই-ভারি…

অযাত্রা - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

অযাত্রা – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

রামবাবু আপিস যাইবার জন্য বাড়ি হইতে বহির্গত হইতেছেন। বেলা আন্দাজ নটা। দুর্গা দুর্গা দুর্গা দুর্গা দুর্গা। দ্রুত মৃদুকণ্ঠে দুর্গানাম আবৃত্তি করিতে করিতে রামবাবু চৌকাঠ পার হইলেন। সঙ্গে সঙ্গে চাদরের খুঁটে টান পড়িল।…

ভেনডেটা - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

ভেনডেটা – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

ত্রিশ-চল্লিশ বছর আগেকার কথা। ওলগোবিন্দ ঘোষ ও কুঞ্জকুঞ্জর কর পাশাপাশি জমিদার ছিলেন। উভয়ের নামই বিস্ময়-উৎপাদক। আসল কথা, ওলগোবিন্দবাবু ছিলেন ওলাই চণ্ডীর বরপুত্র; এবং কুঞ্জকুঞ্জরবাবু শাক্তভাবাপন্ন বৈষ্ণববংশের সন্তান। চারপুরুষ ধরিয়া দুই বংশে কলহ…