শিক্ষণীয় গল্প: তোতাপাখি ও মানুষ

শিক্ষণীয় গল্প: তোতাপাখি ও মানুষ

এক বিজ্ঞ আলেম ছিলেন। যার অনেক ছাত্র ছিল। যখনই তার কাছে নতুন কোন শিষ্য আসত, তিনি তার পরীক্ষা নিতেন। তিনি কিছু তোতা পাখি পালতেন। যাদেরকে তিনি একটি কথা শিক্ষা দিয়েছিলেন।

কথাটি হল; “শিকারি আয়েগা; দানা ডালেগা; জাল বিছায়েগা; ফাসনা নেহি”। অর্থাৎ, শিকারি আসবে, দানা দিবে, জাল পাতবে, ফেঁসে যেও না”।

যখনই নতুন কোন ছাত্র আসত তখনই তিনি তাকে কিছু দানা আর একটি জাল দিয়ে বলতেন যাও ঐ গাছের নিচ থেকে কিছু পাখি ধরে নিয়ে আস।

পাখি গুলো মানুষ দেখা মাত্রই গান গাইতে শুরু করত এই বলে, “শিকারি আয়েগা; দানা ডালেগা; জাল বিছায়েগা; ফাসনা নেহি”।

তখন বেশির ভাগ ছাত্ররাই ফিরে আসত এই ভেবে যে, এত চালাক পাখি ধরা যাবে না।

কিন্তু যদি কোন ছাত্র জাল পাতত আর দানা দিত তবে দেখত যে, পাখিগুলো মুখে ঐ কথা বলছে ঠিকই কিন্তু দানা খেতে আসছে আর জালে ফেঁসে যাচ্ছে।

অর্থাৎ তাদের মুখের কথা তাদের কোন কাজেই আসছে না। এই পাখিগুলো আসলে কি বলছে তাই জানে না।
পাখিগুলো জানে না শিকারি কি জিনিস !

জাল কি জিনিস !
ফাসনা কি জিনিস !

তাই মুখে যতই গান গাক না কেন তাও জালে ফেঁসে মৃত্যু ডেকে আনছে। আমাদের অবস্থাও ঠিক যেন এই তোতা পাখির মতই হয়ে গেছে। আমরা মুখে ‘লা~ ইলাহা ইল্লাল্লাহ’ বলে সাক্ষ্য দিচ্ছি, কিন্তু আমরা এর মর্ম জানি না!

আমরা সুদ-ঘুষ, পরনিন্দা, জিনা, গীবত করছি আর তোতা পাখির মতই আবার কালেমা বলছি আর নিজেকে মুসলমান হিসেবে দাবীও করছি!

কাজেই আমাদের এই সাক্ষ্যদান তোতা পাখির মত, তাই আমরা মুখে কালেমা জপার পরেও শিকারির জালে ফেঁসে যাচ্ছি।

আল্লাহ তায়ালা আমাদের কে সঠিক দ্বীন শিখে সঠিক মানুষ হয়ে কবরে যাওয়ার তৌফিক দান করুন আমিন।

Facebook Comment

You May Also Like