মজার গল্প: নেড়ার আবার বাটপারের ভয়

ak fazlul haque

এই রঙ্গরসিকতার গল্পটি যুক্তফ্রন্টে নির্বাচনের সময় (১৯৫৪) শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের এক জনসভায় বলেছিলেন। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে আমরা গল্পটির পুনর্বণনা করছি।

এক গায়ে ছিল এক মোড়ল। এককালে তার খুব রবদব(নাম ডাক) ছিল। ধনদৌলত ছিল সিন্দুক ভরা। কিন্তু অপচয়, অন্যায় জৌলুসে এখন সব চিচিং ফাক। একেবারেই ফোঁপরা।

এক রাতে সেই মোড়লবাড়িতে এক চোর ঢোকে। মোড়ল টের পেয়ে জেগে উঠে চিৎকার করে পাড়া মাথায় তোলে। পাড়ার লোক হন্তদন্ত হয়ে ছুটে এসে জিজ্ঞেস করে—তোমার সব কিছুই কি নিয়ে গেছে?

মোড়ল বলে : আমার আছে কি যে নেবে? কবেই না লবডঙ্কা (Bugger all) হয়ে বসেছি। নেড়ার আবার বাটপারের ভয় কি?
ভয়-ত্রাসে ছুটে আসা লোকেরা বলে : তাহলে এত চিৎকার কেন?

মোড়ল : চোরে আমার মালমাত্তা নিয়ে গেছে সেজন্য তো আমি চিল্লাফাল্লা করি নাই। চোরেও জেনে গেল আমি দেওলিয়া, আমার টাকা-পয়সা, ধনদৌলত কিছু নাই; সেই দুঃখে চিৎকার কইরা কান্দনে তোমরা জড়ো হয়েছো।

সভার একজন জিগায় : হুজুর, এ গল্পের মাজেজা কী?

হক সাহেব : মাজেজা জলবৎ তরলং। মুসলিম লীগের লোকেরা লুটেপুটে দেশকে শেষ করছে। আমরা ক্ষমতায় এলে তা জানাজানি হয়ে যাবে। সেই কারণেই ওরা আমাদের সভা করতে দেখলে ভয় পায়। বেহুদা চিল্লাচিল্লি করে। ওরা বলে, ‘ফজলুল হক ক্ষমতায় গেলে দেশ ইন্ডিয়ার কাছে বেইচা দিব’। আরে চোরার পুতেরা, দেশটারে সুইট্টা খাইয়া কিছু রাখছস যে বিক্রি কইরা কিছু পামু?

You May Also Like