আমার যখন মৃত্যু আসবে – জালাল উদ্দিন রুমি

আমার যখন মৃত্যু আসবে - জালাল উদ্দিন রুমি

মহাকবি মাওলানা জালাল উদ্দিন রুমি ১২০৭ সালে আফগানিস্তানে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন ১৩ শতকের একজন ফার্সি সুন্নি মুসলিম কবি। তাকে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় কবি এবং ‘বেস্ট সেলিং পয়েট’ বলা হয়। মাওলানা জালাল উদ্দিন রুমির অনন্য সাহিত্যকর্ম ‘মসনবি’ কাব্যে কল্পনা, বাস্তবতা, প্রেম, আধ্যাত্মিকতা, শিক্ষা, রহস্য, রূপকতা ও উপদেশসহ নানা ধরনের আয়োজন প্রায় ৮০০ বছর পরও তার কবিতাকে অত্যুজ্জ্বল করে রেখেছে বিশ্বসাহিত্যে।

‘আমার যখন মৃত্যু আসবে’

– জালাল উদ্দিন মুহাম্মদ রুমি

‘আমার কফিন যখন নিয়ে যাবে
তুমি তখন এটা ভেবো না— আমি এ পৃথিবী থেকে হারিয়ে যাচ্ছি
চোখ থেকে অশ্রু ফেলো না
মুষড়ে যেও না গভীর অবসাদে কিংবা দুঃখে
আমি পড়ে যাচ্ছি না কোন অন্তর্হীন গভীর ভয়ংকর কুয়ায়!

দেখবে যখন আমার মৃতদেহ নিয়ে যাচ্ছে
তুমি কেঁদো না- আমি কোথাও যাচ্ছি না
আমি কেবল পৌঁছে যাচ্ছি অনন্ত প্রেমে।

মানুষ যখন আমাকে কবরে শোয়াবে
বিদায় বলো না আমাকে! কবর কেবল একটা পর্দা মাত্র
এটা পেরোলেই স্বর্গ

তুমি কেবল দেখেছো আমাকে কবরে নামতে
এখন দেখো আমি জেগে উঠছি!
কিভাবে এটার শেষ হয় সেখানে
যখন সূর্য অস্তাচলে যায় কিংবা চাঁদ ডুবে?

এটা মনে হবে এখানেই শেষ
অথচ এটা অনেকটা সূর্য উঠার মত, এটা বরং সুপ্রভাত
যখনই কবর ঢেকে দেয়া হবে
ঠিক তখনই তোমার আত্মা আবার মুক্ত হবে।

তুমি কি কখনো দেখছো—
একটা বীজ মাটিতে রোপন করা হয়েছে
কিন্তু নতুনভাবে জন্মায়নি?
তাহলে তুমি কেন সন্দেহ করো!
মানুষ নামের একটা বীজ জাগবে না?

তুমি কি কখনো দেখেছো?
একটা বালতি কুয়ায় নামানো হয়েছে
অথচ এটা খালি ফিরে এসেছে?
তাহলে তুমি কেন আহাজারি করো!
একটা আত্মার জন্য

যখন এটা কুয়া থেকে উঠে আসে ইউনুসের মত!
তুমি শেষবার নৈঃশব্দে ডুববে
তোমার শব্দ ও আত্মা পৌঁছে যাবে এমন এক পৃথিবীতে
যেখানে কোন স্থান নেই, সময় বলে কিছু নেই!’

You May Also Like