সাধুবাবা - হুমায়ূন আহমেদ

সাধুবাবা – হুমায়ূন আহমেদ

যুবক বয়স থেকেই আমাকে সবাই ডাকত সাধুবাবা। . . . . যদিও ঠিক সাধু বলতে যা বোঝায় আমি তা নই। তবে প্রকৃতিটা একটু ভিন্ন ছিল। সবকিছু থেকে নিজেকে দূরে-দূরে রাখার…

সুলতানের কবর - মানবেন্দ্র পাল

সুলতানের কবর – মানবেন্দ্র পাল

কোনো মূল্যবান জিনিস বাড়ি থেকে হঠাৎ কর্পূরের মতো উবে গেলে মানুষ কতদিন তার খোঁজ করতে পারে? বড়ো জোর এক মাস, দুমাস। তারপর হাল ছেড়ে দিয়ে বসে থাকে। মনকে বোঝায় নিশ্চয়…

ছত্রিশগড়ের ভাঙা গড় - মানবেন্দ্র পাল

ছত্রিশগড়ের ভাঙা গড় – মানবেন্দ্র পাল

হোটেলের ম্যানেজার ভদ্রলোকটিকে প্রথম দর্শনেই আমার ভালো লেগেছিল। এক একটি মুখ আছে যেটা আগে-ভাগেই যেন জানিয়ে দেয় মানুষটি কেমন হবে। এ ক্ষেত্রেও তাই। হোটেলে ঘর বুক করার জন্যে কাউন্টারের সামনে…

টিকটিকি - হুমায়ূন আহমেদ

টিকটিকি – হুমায়ূন আহমেদ

আপনি কি ভয় পাচ্ছেন? জি-না স্যার। ভয় পাওয়ার কিছু নেই। রুটিন জিজ্ঞাসাবাদ। আপনাকে অ্যারেস্ট করা হয় নাই। বুঝতে পারছেন? পারছি স্যার। আপনার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন। এটা আমাদের কাছে পরিষ্কার। উনি…

ধীরেন ঘোষের বিবাহ - শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

ধীরেন ঘোষের বিবাহ – শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়

শ্ৰীযুক্ত ধীরেন ঘোষের বয়স তিপ্পান্ন বছর। তিনি অতি সঙ্গোপনে ট্রেনে চড়িয়া কাশী যাইতেছেন। উদ্দেশ্য, দ্বিতীয়বার দার পরিগ্রহ করা। ধীরেনবাবু অবস্থাপন্ন ব্যবসায়ী। তাঁহার প্রথম পক্ষ হইতে কয়েকটি কন্যা আছে; সকলেই বিবাহিতা…

মিস মনোয়ারা - হুমায়ূন আহমেদ

মিস মনোয়ারা – হুমায়ূন আহমেদ

আচ্ছা শোন, আমার না রোজ বিকেলে গা ম্যাজম্যাজ করে। কী করা যায় বলো তো? ইমন হতাশ চোখে তাকাল। বিয়ের পর এই সমস্যা হয়েছে। শারমিন অদ্ভুত অদ্ভুত সমস্যা নিয়ে উপস্থিত হচ্ছে।…

বেয়ারিং চিঠি - হুমায়ূন আহমেদ

বেয়ারিং চিঠি – হুমায়ূন আহমেদ

জমির সাহেব অফিস থেকে ফেরামাত্রই তাঁর বড় মেয়ে মিতু বলল, বাবা আজ তোমার একটা চিঠি এসেছে। বলেই সে মুখের হাসি গোপন করার জন্যে অন্যদিকে তাকাল। মিতুর বয়স একুশ। এই বয়সের…

অলৌকিক ক্যালেন্ডার - মানবেন্দ্র পাল

অলৌকিক ক্যালেন্ডার – মানবেন্দ্র পাল

লোকটিকে প্রথম থেকেই আমার বেশ মজার লেগেছিল। কুচকুচে কালো রঙ। একমাথা রুক্ষু চুল। লম্বা নাক। চোখ দুটো জ্বলজ্বলে। পাতলার ওপর গড়ন। দেখলে মনে হয় গম্ভীর প্রকৃতির। কিন্তু আলাপ হয়ে গেলে…

ভয় - হুমায়ূন আহমেদ

ভয় – হুমায়ূন আহমেদ

ভদ্রলোকের সঙ্গে আমার কীভাবে পরিচয় হলো আগে বলে নিই। কেমিস্ট্রি প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষার এগজামিনার হয়ে পাড়াগাঁ ধরনের এক শহরে গিয়েছি (শহর এবং কলেজের নাম বলার প্রয়োজন দেখছি না। মূল গল্পের সঙ্গে…

ভৌতিক গল্প: জমিদার বাড়ির অদ্ভুতুড়ে পুকুর

ভৌতিক গল্প: জমিদার বাড়ির অদ্ভুতুড়ে পুকুর

আমাদের এলাকার বিজয় চন্দ্র রায়ের বাড়ি সম্পর্কে আপনাদেরকে আগেই বলেছিলাম আমার “ভূতুড়ে জমিদারবাড়ি ” গল্পে। তখন আপনাদেরকে যে পুকুরের ঘাটে আমাদের লুকানোর কথা বলেছিলাম। সেই পুকুরই হচ্ছে বিজয়চন্দ্র রায় এর…

গঙ্গাধরের বিপদ - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়

গঙ্গাধরের বিপদ – বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়

অনেকদিন আগেকার কথা। কলকাতায় তখন ঘোড়ার ট্রাম চলে। সে সময় মসলা-পোস্তায় গঙ্গাধর কুণ্ডর ছোটখাট একখানা মসলার দোকান। গঙ্গাধরের দেশ হুগলি জেলা, চাঁপাডাঙ্গার কাছে। অনেক দিনের দোকান, যে সময়ের কথা বলচি…

আগন্তুক - হেমেন্দ্রকুমার রায়

আগন্তুক – হেমেন্দ্রকুমার রায়

আমাদের গ্রামখানি অনেকটা উপদ্বীপের মত। তার পূর্ব ও উত্তর দিক দিয়ে একটি নদী প্রবাহিত হয়ে পশ্চিম দিকে আর একটি বড় নদীর ভিতর গিয়ে পড়েছে। পৃথিবীর মাটির সঙ্গে আমাদের গ্রামের অবিচ্ছিন্ন…